ডিজিটাল মার্কেটিং কি? কিভাবে করবো

ডিজিটাল মার্কেটিং কি??
ডিজিটাল
মার্কেটিং এর আভিধানিক অর্থ হচ্ছে বিপনন এবং এই মার্কেটিং শব্দটি যুগ যুগ ধরে আমাদের অতি পরিচিত একটি শব্দ।
অনেকেই মার্কেটিং কে বিভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করতে পারেন,
তবে একদম সহজ করে বলল্লে মার্কেটিং হচ্ছে কোনো ব্র্যান্ড,ব্যবসা,পন্য,সার্ভিস কে জনসাধারণ বা প্রতিষ্ঠানের কাছে প্রচারের মাধ্যমে সেগুলোর Demand ও Value তৈরী করা।

বর্তমান যুগ আধুনিক যুগ,যেখানে এখন ইন্টারনেট ছাড়া চিন্তা করাও কষ্টকর হয়ে উঠছে।
কারন ইন্টারনেটের জন্যই এখন পুরো পৃথিবীই আমাদের হাতের মুঠোয় চলে এসেছে।
আর এই ইন্টারনেটের কল্যাণে প্রচলিত মার্কেটিং শব্দটির সাথে Digital যুক্ত হয়ে হয়েছে Digital Marketing।

Digital Marketing কে আবার অনেকভাবেই বিশ্লেষণ করা যায়,
তবে একদম সহজ করে বললে ডিজিটাল মার্কেটিং বলতে ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে পণ্য, প্রতিষ্ঠান বা ব্র্যান্ডের প্রচারনাকে বোঝায়।
ইন্টারনেট ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে যে ব্যবসায়িক মাধ্যম গড়ে উঠেছে মূলত তাকেই ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়।

Stasista এর তথ্যমতে পুরো বিশ্বে ৪.৬৬ বিলিয়ন মানুষ নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করে যা মোট জনসংখ্যার ৫৯.৫%!
আর এর অধিকাংশ মানুষই ফেসবুক,ইনস্টাগ্রাম,হোয়াটসঅ্যাপ,টুইটার,লিংকডইন,গুগল,বিং,ইয়াহু,ইউটিউব ইত্যাদি সাইটের মতো বিভিন্ন সাইটস ব্যবহার করে থাকে।
যেহেতু এখানে বিশাল অডিয়েন্স রয়েছে, সেহেতু এখানে যদি আমরা আমাদের পণ্যের প্রচারণা করতে পারি তাহলে খুব সহজেই আমরা কাস্টমার পেতে পারি।
এবং এই অডিয়েন্স এর কাছে নিজের পণ্যের প্রচারণার মাধ্যমকেও ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়।

তারপরও অনেকে জিজ্ঞেস করতেই পারেন ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?
আসলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আমরা আমাদের পণ্যের জন্য টার্গেটেড অডিয়েন্স খুব সহজে খুঁজে পেতে পারি, এবং এখানে খরচও তুলনামূলক ভাবে অনেক কম।

ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য অনেকগুলো পদ্ধতি রয়েছে।
কিন্তু কিছু পদ্ধতি রয়েছে যেগুলো আমাদের ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে লাগবেই লাগবে।
তো আমরা আজ সেই বিষয়গুলো নিয়ে জানবো যা ডিজিটাল মার্কেটিং এ সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়:

•SEO (Search Engine Optimization)
•Search Engine Marketing
•Content Marketing
•Online Advertising
•SMM (Social Media Marketing)
•Email Marketing
•Affiliate Marketing
•Viral Marketing

Search Engine Optimization(SEO)
সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান বা এসইও আপনার ওয়েবসাইটি গুগল, ইয়াহু, বিং অথবা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে অনুসন্ধান ফলাফলগুলি পর্যালোচনা করে থাকে।
ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এসইও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

আপনি যদি সঠিকভাবে আপনার কন্টেন্ট এর এসইও করতে পারেন, তাহলে যখন কোন ভিজিটর তার কাঙ্ক্ষিত বিষয় নিয়ে গুগল বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে তথ্য সার্চ করবে তখন আপনার ওয়েবসাইট বা কন্টেন্ট সার্চ ইঞ্জিন প্রথম দিকে দেখানোর চেষ্টা করবে।
এবং এর জন্য খুব সহজেই আপনি টার্গেটেড অডিয়েন্স পাবেন এবং অবশ্যই আরো বেশী মানুষকে রিচ করতে পারবেন।

কারন বর্তমানে মানুষ কোন পণ্য কেনার আগে গুগল থেকে বা সার্চ ইঞ্জিন থেকে সার্চ দিয়ে আগে সে বিষয়গুলো নিয়ে রিসার্চ করে দেখে এবং এর পর কেনার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে।

যখন আমাদের ওয়েব সাইট সার্চ ইঞ্জিন গুলোর প্রথম পেজ এ চলে আসে তখন স্বয়ংক্রিয় ভাবেই আমাদের ওয়েবসাইট এর ভিজিটর বাড়তে থাকে।

SEO কে আবার ২ ভাগে ভাগ করা যায়।

•On Page SEO
•Off Page SEO

Search Engine Marketing :
সার্চ ইঞ্জিনকে মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে মার্কেটিং করা সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বা SEM বলা হয়।
সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং হচ্ছে পেইড মার্কেটিং ম্যাথড।
বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে যখন কেউ কোন কিছু সার্চ করে, তখন অনেক সময় আমাদের কন্টেন্ট সার্চ রেজাল্টে প্রথম দিকে নাও দেখাতে পারে। কারণ এখানে শুধুমাত্র আপনি একাই কন্টেন্ট লিখছেন না,
আরো অনেকেই একই বিষয় নিয়ে কন্টেন্ট তৈরি করছে এবং কম্পিটিশন করছে সার্চ রেজাল্ট এর প্রথমে থাকার জন্য।

প্রতিটি সার্চ ইঞ্জিনে অ্যাডভারটাইজ করার একটা অপশন থাকে এবং তারা অর্থের বিনিময়ে সার্চ রেজাল্ট এ প্রথম দিকে কন্টেন্ট দেখায়।
পেইড মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং অন্যতম।

Content Marketing:
কোনো Content নিয়ে যখন মার্কেটিং করা হয় তখন তাকে Content মার্কেটিং বলে।

যেসব Content দিয়ে সচরাচর মার্কেটিং করা হয়:
•ওয়েব পেইজ
•ব্লগ পোস্ট
•পডকাস্ট
•স্লাইড
•পিডিএফ, ই-বুক
•ছবি
•ভিডিও ইত্যাদি।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য অবশ্যই Content তৈরি করতে হবে। এমনকি Search engine optimization, Social Media marketing সব জায়গাতেই Content অপরিহার্য। Content ছাড়া ডিজিটাল মার্কেটিং অসম্ভবই প্রায়।

বলা হয় “Content Is The King”।
আপনার কন্টেন্ট যত ভালো হবে আপনি তত বেশী অডিয়েন্সকে রিচ করতে পারবেন।

Online Advertising কি :
অনলাইন এর মাধ্যমে যে বিজ্ঞাপন প্রচারনা করি তাই হচ্ছে মূলত Online Advertising।

Online Advertising এর কয়েকটি ধাপ রয়েছে:
CPC (Cost Per Click)
CPA (Cost Per Action)
CPV (Cost Per View)
Display Advertising etc.

Social Media Marketing কি :
সোশ্যাল মিডিয়াকে মাধ্যমে হিসেবে ব্যবহার করে মার্কেটিং করাকেই মূলত সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে।
৪.৬৬ বিলিয়ন ইন্টারনেট ইউজারের মধ্যে অধিকাংশ মানুষই কোনো না কোনো সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকে।
বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া একটা ট্রেন্ড।
তাই এই বিপুল পরিমাণ অডিয়েন্স থেকে টার্গেটেড অডিয়েন্স খুজে নিতে সোশ্যাল মিডিয়ার কোনো বিকল্পই নেই।

সোশ্যাল মিডিয়াতে আবার ২ ভাবে মার্কেটিং করা যায়:

•ফ্রি মার্কেটিং এবং
•পেইড মার্কেটিং

আপনি চাইলে ফ্রি তে আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে কোয়ালিটি কন্টেন্ট তৈরি করে শেয়ার করার মাধ্যমে ক্রেতা খুঁজে নিতে পারেন।
প্রতিটি সোশ্যাল মিডিয়াতে আবার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমেও আপনার পণ্যকে অনেকের সামনে নিয়ে যেতে পারেন।

Email Marketing কি :
যখন কোনো বার্তা অথবা বিজ্ঞাপন গ্রাহকদের কাছে ইমেইলের মাধ্যমে পোঁছানো হয় তখন তাকে আমরা ইমেইল মার্কেটিং বলে থাকি।
ডিজিটাল মাধ্যমে সবচেয়ে সহজ এবং দ্রুত উপায়ে আপনার পণ্যর বিজ্ঞাপন ভোক্তাদের কাছে পৌঁছানোর কার্যকারি পদ্ধতি হল ইমেইল মার্কেটিং।
ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য প্রয়োজন একটি ওয়েবসাইট, মার্কেটিং টুলস এবং পন্য বা সেবা।
ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে মুহূর্তেই আপনি আপনার পণ্য বা সেবা কে হাজার হাজার গ্রাহকের কাছে তুলে ধরতে পরবেন এবং এতে করে আপনার পন্যটি জনপ্রিয় হতে থাকবে।
ফলে আপনার বিক্রি অনেকাংশেই বেড়ে যাবে।

Affiliate Marketing কি :
এফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে মার্কেটিং এর এমন একটি পদ্ধতি বা সিস্টেম যেখানে আপনি অন্য কোন ব্যক্তি বা তাদের ওয়েবসাইট থেকে প্রোডাক্ট নিয়ে নিজের ওয়েবসাইট, পেইজ বা অন্যকোন মাধ্যমে মার্কেটিং করবে এবং কেউ যদি আপনার প্রচার করা লিংক থেকে ঐ প্রোডাক্ট টি ক্রয় করে তাহলে আপনি সেখান থেকে % আকারে কমিশন পাবেন।

Viral Marketing :
আপনি যেই সেক্টরেই থাকুন না কেন, আপনার ব্যাবসা,ব্র‍্যান্ড,পন্য বা সার্ভিসের সাফল্যের জন্য ভাইরাল মার্কেটিং ও কনটেন্টের গুরুত্ব বলে শেষ করা যাবেনা।
ছবি বা লেখাকে প্রোমোট করতে আপনার আর তেমন খাটনি করার প্রয়োজন হবে না। মানুষই ভাইরাসের মত কনটেন্টটিকে ছড়িয়ে দেবে।এই ধরণের কনটেন্ট তৈরী ও প্রকাশ করার পরে আপনার কাজটি হল তার দিকে নজর রাখা, যেমন ফেসবুক, ইউটিউব ইত্যাদি প্রায় সকল সোশাল মিডিয়াতেই ইনসাইট বা এ্যানালিটিকস রয়েছে যা দিয়ে আপনি একটি কনটেন্ট কতটা পারফর্ম করছে বা না করলে কেন করছে না ইত্যাদি জানতে পারেন। দিন শেষে, একটি কথা না বললেই নয়! তা হল ভালো কনটেন্ট তৈরী করুন। ক্যপশন, পোস্ট শিডিউল, প্রিভিউ ইমেজ ইত্যাদির উপরেও ভাইরালিটি নির্ভর করে।

সো এগুলা কাজ যদি আপনার জানা
থাকে তাহলেই আপনিও একজন ডিজিটাল মার্কেটার হতে পারবেন।

ও নিজের ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন।

আপনি হয়তো ভাবছেন আমি কি পারবো ডিজিটাল মার্কেটার হতে অবশ্যই পারবেন কারণ হাজার, হাজার, বেকার লোক আজকে ডিজিটাল মার্কেটিং কে নিজের কাজ হিসেবে বেছে নিয়েছে
এবং তারা খুব সহজেই এই সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে

2 comment on “ডিজিটাল মার্কেটিং কি? কিভাবে করবো”

  • home_it May 18, 2021
    Reply

    মাশাল্লাহ,
    অনেক চমৎকার পোস্ট

    • home_it June 2, 2021
      Reply

      thank you for your review

Write a comment